Previous
Next

সর্বশেষ

Thursday, 14 January 2021

আমেরিকান ইমু-হোয়াটস্ এ‍্যাপ ছেড়ে মুসলিম দেশের Bip ব‍্যাবহার করার জন‍্য এরোদেগানের আহ্বান

আমেরিকান ইমু-হোয়াটস্ এ‍্যাপ ছেড়ে মুসলিম দেশের Bip ব‍্যাবহার করার জন‍্য এরোদেগানের আহ্বান

আমেরিকান imo - WhatsApp ছাড়ুন! তুর্কি Bip App ব্যবহার করুন!

শোস্যাল মিডিয়ায় আরো একধাপ এগিয়ে গেলো মুসলিমরা। এখন WhatsApp, imo এর বিপরীতে তুর্কিরা নিয়ে এসেছে Bip ম্যাসেজিং app।

তুর্কি রাষ্ট্রপতি স্বয়ং এরদোগানও এই Bip app ব্যবহার করছেন। এবং মুসলিম বিশ্বকে এই app ব্যবহারের আহ্বান জানিয়েছেন। 

এমনকি তিনি আরও বলেছেন, এই App মুসলমানদের সবধরনের তথ্য গোপন রাখবে। যেটা আমেরিকান App WhatsApp এবং ইমু করতো না।

ইমুতে অশ্লীল বিজ্ঞাপন এবং ওয়াটসাপে নিরাপত্তাহীনতার কারণে বয়কট করার সময় হয়েছে। মুসলিম হিসেবে সবাইকে তুর্কীর এই নিরাপদ এ্যাপটি ব্যবহার করার আহ্বান জানাচ্ছি। 

আমিও ব্যবহার করছি, আপনিও করুন। এবং আপনার বন্ধুবান্ধবদের আহবান করুন।

এখানে ডাউনলোড লিংক দেয়া হয়েছে। লিংক থেকে ডাউনলোড করতে পারেন-

iOS:
https://apps.apple.com/sa/app/bip-messenger-video-call/id583274826
Play Store:

https://play.google.com/store/apps/details?id=com.turkcell.bip

#Boycott_Imo_App
#Boycott_pornography

Saturday, 9 January 2021

৭১'এর গণহত্যার জন্য বাংলাদেশ পাকিস্তানের কাছে ক্ষমা চাইছে

৭১'এর গণহত্যার জন্য বাংলাদেশ পাকিস্তানের কাছে ক্ষমা চাইছে

বাংলাদেশ ক্ষমা চেয়েছে পাকিস্তানের কাছে!ভারতের নিউজ চ‍্যানেলে প্রচারিত

নয়াদিল্লী  এমনকি, পাকিস্তান এর জন্য সমস্ত ভিসা বিধিনিষেধ অপসারণ করেছে বাংলাদেশী নাগরিকরা পাকিস্তান সফর করবেন, 
 
DhakA 
ক্ষমা চাওয়া হয়েছে উভয় দেশকে এগিয়ে যেতে সক্ষম করার জন্য এবং একাত্তরের গণহত্যার জন্য।
এটি বাংলাদেশের জন‍্য গুরুত্বপূর্ণ  যখন বাংলাদেশে  মুক্তির ৫০ বছর উদযাপন করা হবে।

শাহরিয়ার আলম, বাংলাদেশের পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বৃহস্পতিবার ঢাকায় পাকিস্তানের নতুন হাই কমিশনার ইমরান আহমেদ সিদ্দিকীকে বলেছেন, 
বকেয়া সমাধানের জন্য বাংলাদেশে আটকে থাকা পাকিস্তানীদের প্রত্যাবাসন সমাপ্তকরণ এবং সম্পত্তির বিভাজনের বিষয়টি নিষ্পত্তি করার পাশাপাশি ক্ষমা চাওয়া গুরুত্বপূর্ণ ছিল। 

পাকিস্তানের সাথে দ্বিপক্ষীয় ইস্যু।
দ্বারা প্রকাশিত একটি বিজ্ঞপ্তি অনুসারে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়মন্ত্রী পাকিস্তানকে সাফ্টা(SAFTA) বিধানের অধীনে আরও বেশি বাংলাদেশী পণ্য অ্যাক্সেস দেওয়ার এবং নেতিবাচক তালিকা এবং অন্যান্য বাণিজ্য বাধা শিথিল করার আহ্বান জানান।


এদিকে,পাকিস্তানের নতুন রাষ্ট্রদূত বাংলাদেশ সরকারকে বলেছে,পাকিস্তান বাংলাদেশি নাগরিকদের জন্য পাকিস্তানী ভিসার সমস্ত বিধিনিষেধ ইতিমধ্যে অপসারণ করেছে। 

বৃহস্পতিবার আলম ও পাকিস্তানি সিদ্দিকীর মধ্যে বৈঠকের পর জারি করা এক পাকিস্তানের বিবৃতিতে বলা হয়েছে:-উভয় পক্ষই সর্বস্তরে দ্বিপাক্ষিক যোগাযোগকে আরও জোরদার করতে সম্মত হয়েছে।

শেখ হাসিনা সরকারের দাবি গুলো তখনি পেশ করা হবে যখন পাকিস্তান বাংলাদেশি নাগরিকদের জন্য সমস্ত ভিসা শুল্ক অপসারণ করবে।

Dhaka বলেছে, ক্ষমা চাওয়া উভয় জাতিকে এগিয়ে যেতে সহায়তা করবে।

সুত্র:নয়াদিল্লি
ধানমন্ডিতে ধর্ষণের কারণে  শিক্ষার্থীর মৃত্যু :আটক ৪ জন।

ধানমন্ডিতে ধর্ষণের কারণে শিক্ষার্থীর মৃত্যু :আটক ৪ জন।

রাজধানীর কলাবাগানের ডলফিন গলি এলাকায় ধানমন্ডির মাস্টারমাইন্ড স্কুলের এক শিক্ষার্থীকে টানা ধর্ষণে ফলে প্রচন্ড রক্তপাতে মৃত্যু হয়।

নিহত ওই তরুণী (১৭) ও লেভেলের শিক্ষার্থী ছিলেন। এ ঘটনায় তার বয়ফ্রেন্ড ফারদিন ইফতেখারকে আটক করা হয়েছে। এছাড়া তার আরও তিন সহপাঠীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করার কথা জানিয়েছে কলা বাগান থানা পুলিশ।

এ বিষয়ে নিহত শিক্ষার্থীর বোনজামাই শরীফ বলেন, সে সম্পর্কে আমার চাচাতো শ্যালিকা।

এ বছর মাস্টারমাইন্ড স্কুল থেকে ও-লেভেল পরীক্ষা দেয়ার কথা ছিল। বৃহস্পতিবার দুপুর তিনটার দিকে কলাবাগানের ডলফিন গলিতে কোচিং করতে গেলে এ সময় তার এক বান্ধবী মিথ্যা প্রলোভন দেখিয়ে একটি বাসায় নিয়ে যায়। এ সময় ওই বাসাতে চারজন মিলে তাকে ধর্ষণ করে।

যখন প্রচন্ড রক্তপাত শুরু হয় তখন ধর্ষণে অভিযুক্ত ফারদিন ইফতেখার দিহান তাকে ধানমন্ডির আনোয়ার খান মর্ডান হাসপাতালে নিয়ে যায়।

পরবর্তীতে বিকাল পাঁচটায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়। লাশ বর্তমানে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে রয়েছে। এ বিষয়ে আমরা মামলা করেছি।

তিনি জানান, নিহত শিক্ষার্থীর মা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনে চাকরি করেন। বাবা ব্যবসায়ী। তিন ভাই বোনের মধ্যে সে ছিল বড়।

ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে থাকতেন। নিহত শিক্ষার্থীর মা জানান, আমার মেয়েকে বাসা থেকে ডেকে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। ও আমাকে যখন ফোন করে জানিয়েছিল তখন আমি অফিসে ছিলাম। আমাকে জানায়, মা আমি ক্লাসের ওয়ার্কসিট আনতে যাচ্ছি।

এই বলে গেছে। দুপুর একটার পরে একটি ছেলে মুঠোফোন থেকে ফোন দিয়ে জানায়, আমার মেয়ে অজ্ঞান হয়ে গেছে। ওকে হাসপাতালে নিয়ে এসেছি। আপনারা আসেন। পরবর্তীতে গিয়ে দেখি মেয়ের নিথর দেহ পড়ে আছে। ওকে হাসপাতালেই আনা হয়েছে মৃত।

এ বিষয়ে কলাবাগান থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) ঠাকুর দাস জানান এ ঘটনায় মামলা প্রক্রিয়াধীন।

Thursday, 7 January 2021

১ হাজার টাকা করে কিডস্ এলাউন্স দেওয়া হবে প্রাইমারি শিক্ষার্থীদের - প্রধানমন্ত্রী

১ হাজার টাকা করে কিডস্ এলাউন্স দেওয়া হবে প্রাইমারি শিক্ষার্থীদের - প্রধানমন্ত্রী

প্রাথমিক শিক্ষার্থীদের ১ হাজার টাকা করে কিডস্ এলাউন্স দেওয়া হবে।

মুজিববর্ষ উপলক্ষে ২০২১ শিক্ষাবর্ষে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীদের ১ হাজার টাকা করে কিডস্ এলাউন্স দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সরকারের দ্বিতীয় বর্ষপূর্তি ও তৃতীয় বর্ষে পদার্পন উপলক্ষে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় জাতির উদ্দেশে দেওয়া ভাষণে তিনি এ কথা জানান।


প্রধানমন্ত্রী বলেন, মুজিববর্ষ উপলক্ষে ২০২১ শিক্ষাবর্ষে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীদের ১ হাজার টাকা করে কিডস্ এলাউন্স দেওয়া হবে। এজন্য ১ হাজার ৪০০ কোটি টাকা ব্যয় হবে।

করোনায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার বিষয়ে শেখ হাসিনা বলেন, করোনাভাইরাস মহামারির কারণে শিক্ষার্থীদের সুরক্ষার কথা বিবেচনা করে আমাদের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ রাখতে হচ্ছে। শুধু আমাদের দেশেই নয়, গোটা বিশ্বেই একই পরিস্থিতি।
তবে শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ নেই। অনলাইনে এবং স্কুল পর্যায়ের জন্য টেলিভিশনের মাধ্যমে শিক্ষা কার্যক্রম চালু রাখা হয়েছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো খুলে দেওয়া হবে।বছরের প্রথম দিনেই নতুন বই বিতরণ শুরু হয়েছে।

শিক্ষাখাতে সরকারের নেয়া পদক্ষেপ সংক্ষিপ্ত আকারে তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন,২০১৯-২০ অর্থবছরে প্রাথমিক থেকে উচ্চশিক্ষা পর্যন্ত প্রায় ২ কোটি টাকা শিক্ষার্থীর মধ্যে ২ হাজার ৯৫৮ কোটি টাকার বৃত্তি-উপবৃত্তি বিতরণ করা হয়েছে।

২০২০ সালে প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট্রের আওতায় স্নাতক ও সমমানের শ্রেণির আরও ২ লাখ ১০ হাজার ৪৯ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে প্রায় ১১১ কোটি বিতরণ করা হয়।

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, দেশের ৭ হাজার ৬২৪টি এমপিওভুক্ত মাদ্রাসায় ১ লাখ ৪৮ হাজার ৬১ জন শিক্ষক-কর্মচারিকে প্রতিমাসে ২৭৬ কোটি টাকা বেতন ভাতা দেওয়া হচ্ছে।

২০২০ সালে নতুন করে ৪৯৯টি মাদ্রাসা এমপিওভুক্ত করা হয়েছে। ১ হাজার ৫১৯টি এবতেদায়ি মাদ্রাসার ৪ হাজার ৫২৯ জন শিক্ষককে ত্রৈমাসিক ৩ কোটি ১৫ লাখ টাকা অনুদান দেওয়া হচ্ছে।
দাওয়ারে হাদিস পর্যায়কে মাস্টার্স সমমান দেওয়া হয়েছে। সারা দেশে ৫৬০টি মডেল মসজিদ এবং ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র গড়ে তোলা হচ্ছে বলেও জানান

সুত্র:যুগান্তর

Thursday, 31 December 2020

 ২ জানুয়ারি থেকে কুয়েতে চালু হচ্ছে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট ||

২ জানুয়ারি থেকে কুয়েতে চালু হচ্ছে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট ||

 ২ জানুয়ারি থেকে কুয়েতে চালু হচ্ছে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট ||

২ জানুয়ারি থেকে কুয়েতের চালু হতে যাচ্ছে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট 


আগামী ২ জানুয়ারি থেকে কুয়েতে বিমানবন্দর, স্থলপথ ও সমুদ্রবন্দর আন্তর্জাতিক ফ্লাইট পুনরায় চালুর সিদ্ধান্ত নিয়েছে কুয়েত।

সোমবার কুয়েতের মন্ত্রি পরিষদের এক বৈঠকে এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।


স্থানীয় গণমাধ্যম আল কাবাস ও আরব টাইমসে প্রকাশিত সংবাদে বিষয়টি নিশ্চিত করে।

পূর্বের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আগামী শনিবার থেকে পুনরায় আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চলাচল করবে।

তবে, সমুদ্র ও সীমান্ত পথ প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত খোলা থাকবে। যুক্তরাজ্যে করোনার নতুন স্ট্রেন ধরা পড়ায়, দেশটির সঙ্গে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট বাতিল ঘোষণা করে কুয়েত।


এর আগে বাংলাদেশ, ভারত, পাকিস্তানসহ, নিষিদ্ধ ৩৪ দেশের নাগরিকদের সরাসরি কুয়েতে প্রবেশের অনুমতি দিলেও, ১৫ ডিসেম্বর থেকে প্রথম ধাপে শুধুমাত্র ফিলিপাইনের নাগরিকরা এসে পৌঁছায়।


শনিবার থেকে ভিজিটসহ অন্যান্য ভিসায় তৃতীয় দেশ হয়ে, দুবাই অথবা অন্যদেশে আটকে থাকা যাত্রীরা কুয়েতে প্রবেশ করতে পারবেন।

Wednesday, 23 December 2020

মালয়েশীয়ায় শ্রমিকদের বাসস্থান গৃহপালিত পশুর মতো

মালয়েশীয়ায় শ্রমিকদের বাসস্থান গৃহপালিত পশুর মতো

গৃহ পালিত পশুর মত শ্রমিকদের বাসস্থান


ঘরগুলো সরু এবং যেমন মহিষের খাঁচার মতো নোংরা এবং দুর্গন্ধযুক্ত বর্ণনা করেছেন মানবসম্পদ মন্ত্রী এম সারাভানান। এটাই হোস্টেলের আসল পরিস্থিতি। মন্ত্রী কাজাং এর বাতু ১৩ চেরাসের একটি গ্লোভ-প্রসেসিং কারখানায় বিদেশি শ্রমিকদের জীবনযাত্রার অবস্থা পরিদর্শন করার পরে হতবাক হয়েছিলেন।

মালয়েশিয়ার ওয়ার্কিং অ্যাকশন কমিটি, স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয়, পুলিশ এবং কাজাং পৌর কাউন্সিলের (এমপিকেজে) ৬০ জন সদস্য এই অভিযান পরিচালনা করেছিলেন।

শ্রমিকদের দুটি দীর্ঘ ১.৫ মিটার দীর্ঘ কন্টেইনারে' পাইলড' করা হয়েছিল, যা ঘর হিসাবে ব্যবহৃত হয়। এ গুলোতে একসাথে মাত্র ১০০জন লোক থাকার জন্য ধারণা করা হয়েছিল তবে ৭৫১ জন এতে বাস করছেন।

মহামারী চলাকালীন, গ্লোভ শিল্প রেকর্ড পরিমাণ লাভ করছে। দুর্ভাগ্যক্রমে, সাফল্য সেই শ্রমিকদের কাছে যায় নাই যারা এই কোম্পানির মেরুদন্ড।

মানব সম্পদ মন্ত্রী আরো বলেন, নতুন করে যারা বিদেশি শ্রমিক আনার জন্য আবেদন করবে, তাদের আগে কর্মীদের বাসস্থান সহ মৌলিক অধিকারগুলি দেওয়ার প্রতিশ্রুতি এবং সে অনুযায়ী ব্যবস্থা থাকলেই কেবল মাত্র বিদেশি শ্রমিক আনার অনুমতি পাবে।



সিঙ্গাপুর মানেই মাসে ৫০ 'হাজার' কথাটা সত‍্য কিনা পড়ুন

সিঙ্গাপুর মানেই মাসে ৫০ 'হাজার' কথাটা সত‍্য কিনা পড়ুন

আপনারা যারা বিদেশ আসতে চাচ্ছেন, আর আমরা যারা বিদেশে পরে আছি -

এই দুইটা গ্রুপের চিন্তা চেতনা সম্পূর্ন ভিন্ন, যারা বিদেশ আছি আমরা চিন্তা করি কেন আসলাম? 

কবে এই প্রবাস জীবন শেষ করে দেশে ফিরে যেতে পারব। কিন্তু যারা বিদেশে আসতে চাচ্ছেন তারা চিন্তা করে কবে যে যাব আর ডলার কামাবো এই চিন্তাই এদের মাথা নষ্ট করে দেয়।

আমাদের সমাজটাও কিছুটা উল্টাপাল্টা টাইপের সমাজ, আপনি ১ হাজার টাকা চেয়ে দেখেন ব্যবসার জন্য কেও দিবে না,কিন্তু লাখ টাকা নিয়ে এসে আপনার বাসায় বসে থাকবে যদি 

শুনে আপনি বিদেশ যাবেন বলে টাকা চাইছেন।
 

যিনি টাকা দিতে চাচ্ছেন তার কথাটা পরে বলছি, আপনি যে বিদেশে আশার চিন্তা করছেন তার বিষয়টা একটু বলি।

আপনি কেন বিদেশ আসার চিন্তা করছেন এটা একমাত্র আপনি এবং আপানর পরিবার ভাল বলতে পারবে,

কেননা নিশ্চয় আপনারা চিন্তা করে এই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।
আপনি যদি পাশের বাড়ির কারো পাঠানো রেমিটেন্সের লোভে পরে বিদেশে পারি জমাতে চান তাহলে একটু খুজ নিয়ে দেখুন,

যে আজ লক্ষ টাকা পরিবারকে দিচ্ছে সে নিশ্চয় ১০/১২ বছর প্রবাসের গ্লানি টেনে আজকে এই লক্ষ টাকা দিচ্ছে।
হয়তো সে শুরু করেছিল ৫/৭ হাজার টাকা ইনকাম করে,
যে সময়টা আপনার কেহই আমলে নিচ্ছেন না। 

বাস্তবে এই সময়টার হিসাব করেই আপনাকে বিদেশে আসতে হবে,নতুবা বিদেশে কাজের ১ম দিনই আপনি খুজে পাবেন আপনার বিশাল স্বপ্ন শেষ হয়ে মাটির সাথে মিশে গেছে 

আর সেই স্বপ্ন ভঙ্গের কষ্ট কতটুকু সহ্য করতে পারবেন আপনিই ভাল বলতে পারবেন।

বর্তমানে সিঙ্গাপুর আসতে প্রায় ৭ লক্ষ টাকা লাগবে, আপনি যদি এই টাকাটা সহজে ব্যবস্থা করতে পারেন তাহলে দেশেই একটা ছোটখাট ব্যবসা শুরু করতে পারেন।

 কেননা বর্তমানে সিঙ্গাপুর সহ প্রায় সারা বিশ্বেই শ্রমিক লেভেলটা খুব সমস্যায় আছে।

শুরুতে হয়তো আপনি বেতন যা পাবেন তা থেকে সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা সেইভ করতে পারবেন তাহলে আপনার প্রাথমিক অবস্থায় আসার সময় যে ৭ লক্ষ টাকা দিলেন তা তুলতেই আপনাকে 

৩৫ মাস অর্থাৎ ৩ বছর কাজ করতে হবে যা এক কথায় কুলুর বলদের মত খেটে গেলাম ৩ বছর পরে খুজে পাবেন নিজে এখনও শূন্যে আছেন।

এতদিন মাইনাসে অবস্থান করছিলেন তার উপর যদি কোম্পানি প্রতি বছর ভিসা নবায়নের জন্য টাকা নেই তাহলেতো আপনি ৪ বছরেও পারবেননা আপনার প্রাথমিক বিনিয়োগ তুলতে।

যদি টাকাটা লাভের উপর কর্জ করে আনতে হয় তাহলে আপনার পায়ে হাত দিয়ে বলব,
প্লিজ বিদেশে আসবেন না এটা আপনার জীবন শেষ করে দিবে।
যা রোজি করবেন সব আপনাকে সুদের লাভ দিতেই শেষ হয়ে যাবে, সুতরাং দেশে কিছু করুন।

গাধার মত পরিশ্রম আর কচ্চপের গতিতে বেতন, পাথরের বালিশ প্রিয়ার আলিঙ্গন আর রাস্তার পাশে ফকিরের বেশে খাওয়া,

একরুমে ১০/১৫ জন একসাথে থাকা যার পরিবেশ বস্তির চেয়েও খারাপ। এত কিছু মেনেও যদি আপনি সিঙ্গাপুরে আসতে চান তাহলে আপনাকে বলব,
আপনার সকল সার্টিফিকেট ড্রাইভিং লাইসেন্স এবং পাসপোর্ট অবশ্যয় মিল রেখে করবেন, নিজের নাম, বাবার নাম, মায়ের নাম এবং জন্ম তারিখ এই চারটা বিষয় মিল রেখে করলে 

আপনার সব কাগজ পত্র বিদেশে ব্যবহার করতে পারবেন নতুবা একটা ছোট্র ভুলের জন্য আপনার ১৬/১৭ বছরের শিক্ষা জীবনের অর্জন সনদগুলি ব্যাগে উই পুকা খাবে আপনি কোন কাজে লাগাতে পারবেন না।

সব কিছু ঠিক থাকলে আপনার মনে পরিশ্রম করার সাহস থাকলে তাহলে আপনার জন্য আমার শেষ কথা, সিঙ্গাপুর খুব সহজে অনেক ভাল করা যায় যদি আপনি করতে চান তবে 

তারজন্য আপনাকে কন্টিনিও লেখাপড়া চালিয়ে যেতে হবে তাহলেই আপনি ২/৩ বছর পর লক্ষ টাকা রোজি করতে পারবেন।
প্রথমে পরিবারকে অল্প কিছু টাকা দিয়ে আপনি একের পর এক টেকনিক্যাল কোর্স করতে থাকবেন তাহলে ২/৩ বছর পর আপনার সম বয়সি বন্ধুদের ১ বছরের ইনকাম আপনি ১ মাসেও করতে পারবেন,

সবশেষে আপনার জন্য শুভ কামনা থাকলো, সফল এবং আনন্দের হোক আপনার প্রবাস জীবন।

ক্রেডিট:-সিঙ্গাপুর প্রবাসী