Monday, 18 May 2020

মির্জাপুরে কর্মহীনদের ঘরে ঘরে খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দিচ্ছেন এমপি একাব্বর

মির্জাপুরে কর্মহীনদের ঘরে ঘরে খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দিচ্ছেন এমপি একাব্বর< মির্জাপুর নিউজ ডেস্ক: টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে করোনা পরিস্থিতিতে নিজ নির্বাচনী এলাকার মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি এবং মির্জাপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. একাব্বর হোসেন এমপি। চলমান লকডাউনের কারণে কর্মহীন হয়ে পড়া উপজেলার দুই হাজার ৫০০ পরিবারের মাঝে ব্যক্তিগত তহবিল থেকে খাদ্য সহায়তা প্রদান করেছেন তিনি। জানা যায়, উপজেলার ১৪টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভা মিলিয়ে সর্বমোট আড়াই হাজার অসহায় ও কর্মহীন পরিবারকে খাদ্য সহায়তা দেয়া হয়েছে। এসব খাদ্য সামগ্রীর মধ্যে ছিল- ৮ কেজি চাল, ২ কেজি আলু, ১ কেজি ডাল, ১ কেজি পেঁয়াজ, ১ কেজি লবণ ও একটি করে সাবান। পাশাপাশি বিতরণকারীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় একটি করে মাস্ক দেয়া হয়। এদিকে, করোনা রোগীর নমুনা সংগ্রহ ও তাদের চিকিৎসা সহায়তার জন্য উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের অধীনে কর্মরত চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীদের কাজের সুবিধার জন্য তিনি এ পর্যন্ত পাঁচ হাজার স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রীর ব্যবস্থা করে দিয়েছেন। অন্যদিকে লকডাউন পরিস্থিতিতে ধানকাটার শ্রমিক সংকটের কথা চিন্তা করে তার নির্বাচনী এলাকার জন্য চারটি ধানকাটার হারভেস্টার মেশিন ও উন্নত প্রযুক্তির মাড়াই যন্ত্রের ব্যবস্থা করে তা কৃষকের মধ্যে বিতরণ করেছেন। সেই সাথে এমপির নির্দেশে স্থানীয় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা নিজ নিজ ওয়ার্ডের অসহায় কৃষকের ধান কেটে ঘরে তুলে দিয়েছেন। এছাড়াও খাদ্য সংকট মোকাবিলায় এমপি একাব্বর হোসেন তার ব্যক্তিগত উদ্যোগে ও প্রশাসনের মাধ্যমে কৃষকের মধ্যে সবজি বীজ বিতরণ করেছেন। এ সময় তিনি প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী কৃষকের এক ইঞ্চি জমিও যেন অব্যবহৃত পড়ে না থাকে সেই পরামর্শ দেন বলে জানা গেছে। তাছাড়া করোনা সংক্রমণ রোধে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা নিশ্চিত করাসহ সরকারের দেয়া খাদ্য সহায়তা যাতে করে দলমত নির্বিশেষে সুষম বণ্টন হয় সে ব্যাপারে তিনি স্থানীয় প্রশাসনকে সার্বক্ষণিক দিক নির্দেশনা দিয়ে যাচ্ছেন। টাঙ্গাইল-৭ (মির্জাপুর) আসনের সংসদ সদস্য একাব্বর হোসেন ঘোষণা দিয়েছেন তার নির্বাচনী এলাকার কর্মহীন একজন মানুষও না খেয়ে মারা যাবে না। মহামারির এই দুর্যোগকালীন সময়ে স্থানীয় এমপির এমন কর্মতৎপরতায় জনসাধারণ এবং নেতাকর্মীসহ স্থানীয় প্রশাসনও সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন।

শেয়ার করুন

0 Please Share a Your Opinion.: