Tuesday, 16 June 2020

রেমিটেন্স সেবা নিয়ে সিঙ্গাপুর প্রবাসীদের থাকার জায়গাই এনবিএল

বাংলাদেশি এক্সচেঞ্জ হাউসগুলোর মধ্যে এনবিএল মানি ট্রান্সফার প্রাইভেট লিমিটেডই দীর্ঘদিন ধরে সুনামের সাথে সিঙ্গাপুরে সবচাইতে বেশি সংখ্যক ব্যাংক (১২টি) এবং এনজিও’র মাধ্যমে রেডি ক্যাশ সেবা দিয়ে আসছে।

বাংলদেশি ন্যাশনাল ব্যাংকের সিঙ্গাপুরস্থ সাবসিডিয়ারিজ এনবিএল মানি ট্রান্সফার প্রাইভেট লিমিটেড চলমান করোনা সংকটের সময় প্রবাসী বাংলাদেশি শ্রমিকদের আবাসস্থলে হাজির হয়ে রেমিট্যান্স পাঠানোর ব্যাপারে সেবা দিয়ে যাচ্ছে।

সিঙ্গাপুরের জনশক্তি মন্ত্রণালয় এবং সিঙ্গাপুরের মুদ্রা কর্তৃপক্ষ ব্যাংকের যৌথ সহযোগিতায় সিঙ্গাপুরের শিল্পাঞ্চলখ্যাত সাউথ তুয়াসের প্রবাসী বাংলাদেশি শ্রমিকদের আবাসস্থল ১৪ টেকপার্ক ক্রিসেন্ট সিঙ্গাপুর-৬৩৮১১৮ ও ১৮ টেকপার্ক ক্রিসেন্ট সিঙ্গাপুর-৬৩৮১১৪ ডরমেটরিতে এক্সচেঞ্জ হাউজটির কর্মকর্তারা হাজির হয়ে রেমিট্যান্স সেবা দিচ্ছেন।

স্বাস্থ্য ঝুঁকি বিবেচনায় সিঙ্গাপুর সরকারের আরোপিত বিধিনিষেধের কারণে প্রায় দুই মাস আইসোলেশন বা কোয়ারান্টাইনে (সঙ্গরোধ) আছেন সেখানকার শ্রমিকরা। শ্রমিকদের দুর্ভোগ বিবেচনা করে বেতনের টাকা দেশে পাঠানোর ব্যবস্থা করতে স্বাস্থ্য ঝুঁকির চ্যালেঞ্জ নিয়েই এনবিএল মানি ট্রান্সফার শ্রমিকদের দোরগোড়ায় হাজির হয়ে রেমিট্যান্স সেবা দিয়ে যাচ্ছে এবং আগামীতেও এ সেবা অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছেন প্রতিষ্ঠানটির সিইও মুহাম্মদ জাকারিয়া হাবিব।

এনবিএল মানি ট্রান্সফারের সহকারী অপারেশন ম্যানেজার মো. আক্তরুজ্জামান জানিয়েছেন, সিঙ্গাপুরের অন্যান্য ডরমেটরিতেও এ সেবা বিস্তৃত করা হবে। প্রবাসী শ্রমিকদের দেশে টাকা পাঠানো সহজতর করতে ইতোমধ্যে নতুন নতুন বেশ কিছু উদ্যোগ গ্রহণ করা হচ্ছে। এনবিএল নিমিষেই দেশের বিকাশ ও অধিকাংশ ব্যাংক একাউন্টে একদিনেই টাকা পৌঁছে দিচ্ছে। প্রিয়জনরা রেডি ক্যাশের মাধ্যমে মাত্র পাঁচ মিনিটেই প্রবাসীদের পাঠানো টাকা পেয়ে যাচ্ছেন।

সিইও মুহাম্মদ জাকারিয়া হাবিব জানান, স্বাস্থ্য ঝুঁকি থাকা সত্ত্বেও প্রবাসী ভাইদের সেবা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে এ পদক্ষেপ তারা নিয়েছেন। এনবিএল দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করতে, রেমিট্যান্স সেবা নিশ্চিত করতে এবং দেশের সেবায় যে কোনো দুর্যোগে পদক্ষেপ গ্রহণে তারা প্রস্তুত।


শেয়ার করুন

0 Please Share a Your Opinion.: