Tuesday, 16 June 2020

মালয়েশিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রীর সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎ "বাংলাদেশ রাষ্ট্রদূতের"

মালয়েশিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রী দাতুক সেরি ইসমাইল সাবরি ইয়াকুবের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেছে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মহ. শহীদুল ইসলাম।

স্থানীয় সময় মঙ্গলবার (১৬ জুন) বিকালে প্রতিরক্ষা মন্ত্রীর কার্যালয়ে সাক্ষাৎ করেন তিনি। সাক্ষাতকালে তারা পারস্পরিক সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে কুশলাদি বিনিময় ছাড়াও রোহিঙ্গা ইস্যু, অবৈধ শ্রমিক ইস্যু এবং দ্বিপাক্ষিক স্বার্থ সংশ্লিষ্টসহ অন্যান্য বিষয়সহ দুই দেশের মধ্যে বিদ্যমান সুসম্পর্ক ও সহযোগিতা সংক্রান্ত বিভিন্ন বিষয়ে আরো ঘনিষ্ঠ হবার বিষয়ে একমত পোষণ করেন।

এছাড়া মালয়েশিয়ায় কর্মরত শ্রমিকদের সমস্যা ও সম্ভাবনা নিয়ে ও আলোচনা হয়। মন্ত্রী তার অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে পোস্টের মাধ্যমে এসব কথা বলেন।এর আগে আরেকটি বিবৃতিতে তিনি জানান, করোনাভাইরাস কোভিড-১৯ পরবর্তী অভিবাসন খাতে অভিবাসীদের নিয়ন্ত্রণের নীতিতে উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন আসবে। বিদেশী কর্মী নিয়োগের নীতি এবং অবৈধ অভিবাসীদের জন্য বিশদ বিবরণ দিয়ে তিনি বলেন, মালয়েশিয়া ও 

পার্শ্ববর্তী সিঙ্গাপুরসহ আরও বেশ কয়েকটি দেশে বৈধ-অবৈধ অভিবাসীদের মাঝে সচেতনতার অভাবে আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে। তারই অংশ হিসাবে বিদেশিদের প্রবেশে নতুন করে নীতিটি সংশোধন করার সময় এসেছে। কারণ বিদেশী কর্মী নিয়োগের নীতিতে এবং অবৈধ বিদেশীদের আগমনকে বাধা দেওয়ার ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন হবে।

এছাড়া করোনার প্রাদুর্ভাবের ফলে পর্যটন খাতসহ বিভিন্নভাবে অর্থনীতি ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এতে অনেক হোটেল ও কারখানা বন্ধ হয়ে গিয়েছে। শ্রমিকদের অপসারণের ফলে বেকারত্ব বেড়েছে। পরবর্তী অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধার ধীর গতিতে হতে পারে। তবে, আমরা চাই বিদেশিদের চেয়ে স্থানীয় নাগরিকদের অগ্রাধিকার ভিত্তিতে কাজ করাতে। পাশাপাশি বিদেশি কর্মীদের সংখ্যা হ্রাস সংক্রান্ত নীতি পর্যালোচনা করার জন্য সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সাথে আলোচনা করা হবে বলে তিনি জানান।

অন্য আরেকটি বিবৃতিতে তিনি জানান, ২০১৭ সালে মিয়ানমারে সেনা নিপীড়নের শিকার হওয়ার পর লাখ লাখ রোহিঙ্গার গন্তব্য হয়ে ওঠে দেশটি। ওই নিপীড়নের সময় পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের অনেকেই মালয়েশিয়া প্রবেশের চেষ্টা করেছে। তবে করোনাভাইরাস ঠেকাতে এই মুহূর্তে আর কোনও রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেওয়া হবে না।সাক্ষাৎ শেষে প্রতিরক্ষা মন্ত্রী দাতুক সেরি ইসমাইল সাবরি ইয়াকুব রাষ্ট্রদূতের পক্ষ থেকে উপহার প্রদান করা হয় এবং বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূতকেও প্রতিরক্ষা মন্ত্রী উপহার প্রদান করেন।

শেয়ার করুন

0 Please Share a Your Opinion.: